Tuesday, মে ২১, ২০২৪

৩ ওঝা-ডাঃ বাঁচাতে পারেনি সাপে কাটা অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুকে

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

বেড়া – প্রতিনিধিঃ পাবনার বেড়া উপজেলায় সাপের কামড়ে সুলতানা খাতুন (২৩) নামের এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। মৃত সুলতানাকে তিন ওঝা ও ডাঃ তাকে বাঁচাতে পারেনি।

শনিবার (১৮ জুলাই) বিকেল ৫ টার দিকে  উপজেলার চাকলা পুর্বপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত সুলতানা উপজেলার চাকলা পুর্বপাড়া গ্রামের শাহানুর প্রামানিকের স্ত্রী। শাহানুর মকুল প্রামানিকের ছেলে।

নিহতের স্বজনদের সুত্রে জানা যায়, সুলতানা তার  নিজ পালিত গরুর গোয়ালে বিকেলে ঘাঁস দিতে গেলে অদৃশ্য কোন বিষধর সাপ তার পায়ে কামড় দেয়। এসময় তার চিৎকারে পরিবারের লোকজন প্রথমে তার পা রশি দিয়ে বেঁধে স্থানীয় ওঝার কাছে নিয়ে যায়। ওঝা প্রায় দুঘন্টা ঝাড় ফুক করার পরে সে ব্যার্থ হন এবং অন্য ওঝার কাছে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। সন্ধা সাতটার দিকে বেড়া সওদাগরপাড়া অন্য এক সাপুরের কাছে নিয়ে গেলে সেও প্রায় দুঘন্টা ঝাড় ফুক করার পর ব্যার্থ হয়ে বলেন রোগী মারা গেছে। তখন স্বজনেরা রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবুও যেন স্বজনদের মেনেই নিতে পারেনি সে মারা গেছে। তরিঘরি করে মৃত সুলতানাকে বাড়িতে নিয়ে এসে রাত বারোটারদিকে অন্য আরো একজন ওঝাকে নিয়ে আসলে সেও তাকে মৃত্য ঘোষনা করেন। নিহত সুলতানার চার বছর বয়সের একটি কন্যা সন্তান ছিল এবং সে দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল বলে তার পরিবার সুত্রে জানা গেছে।

প্রতিবেশি মো. টিক্কা জানান, আসলে সুলতানা গর্ভবতী ছিল তাই তাকে প্রথমেই ডাক্তারের কাছে নেননি। গর্ভবতী থাকলে নাকি কোন ইনজেকশন দেয়া লাগেনা। রবিবার সকাল আটটার দিকে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে বলে জানান তিনি।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ রেজাউল হামিদ জানান, রোগীর পরিবার রোগীকে মৃত্য অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে এসেছিলেন। ঐসময় আমাদের কিছু করার ছিল না।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর