Wednesday, এপ্রিল ২৪, ২০২৪
শিরোনাম
পাবনায় বিপুল পরিমাণ টাকাসহ পাউবোর দুই প্রকৌশলী আটক, পালিয়ে গেলেন ঠিকাদারসাঁথিয়ায় ডেপুটি স্পিকারের উদ্বোধনকৃত নতুন হাট ভেঙ্গে দিলেন এসিল্যান্ডসাঁথিয়ায় দোকান ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগসাঁথিয়ার কাশিনাথপুরে মাতৃগর্ভে থাকা শিশুর লিঙ্গ পরিচয় প্রকাশ করে রমরমা ব্যবসাআটঘরিয়ায় পহেলা বৈশাখ বাংলা নববর্ষ  উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমুলক আলোচনাআটঘরিয়ার লক্ষীপুরে ব্রীজ ভেঙে ফেলায় বাঁশ কাঠের সাঁকো দিয়ে ১৫ হাজার লোকের পাড়াপারআটঘরিয়ায় প্রথম বারের মতো বারি -২ মৌরি মশলা চাষ করে সফল কৃষক জহুরা বেগমআটঘরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় কুত্তা গাড়ির হেলপার নিহতপেঁয়াজের অস্বাভাবিক দাম রাতে পেঁয়াজখেত পাহাড়ায় কৃষকআটঘরিয়ায় স্বামীর উপর অভিমানে স্ত্রীর আত্মহত্যা : স্বামী আটক

বেড়ায় ত্রাণ বিতরণে এগিয়ে দাবী মাশুমদিয়া ইউনিয়নের

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এবং এর বিস্তাররোধে মাশুমদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিরোজ হোসেন ত্রাণ বিতরণে বেড়া উপজেলার মধ্যে এগিয়ে বলে ইউনিয়নবাসীর। ইতোমধ্যে সরকারিভাবে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে, দলীয়ভাবে এবং তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণের কার্যক্রম শুরু করেছেন। কোন জমায়েত করে নয়, লোক দেখানোর জন্যও নয়। গত এক সপ্তাহ ধরে মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে তিনি নিজ হাতে ত্রাণ দিয়ে আসছেন। পুরাণ মাশুমদিয়া, কাজিরহাট, বাধেঁরহাট, খানেবাড়ি, মাশুমদিয়া বাজার, মধ্যপাড়া, কাজীপাড়া, রুপগঞ্জ, আয়েনঢোপ, ত্রিমোহনী বাজারসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন দূর্গম এলাকায় ইউপি সদস্যদের সাথে নিয়ে ত্রাণ বিতরণ করছেন এবং অবস্থা বুঝে আরও দেবেন বলে জানিয়েছেন।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মাশুন্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মিরোজ হোসেন জানান, “আমি আমার ইউনিয়নে ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রায় ১৫০০ পরিবারকে কিছু ত্রাণ (প্রত্যেক পরিবারের জন্য পাঁচ কেজি চাউল, ১ কেজি আলু, ১ কেজি ডাউল ও ১ কেজি খাবার তেল) প্রদান করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। ইতোমধ্যে কিছু বিতরণ করা হয়েছে এবং বাকিগুলোও পর্যায়ক্রমে বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়াও আমার ইউনিয়নের ৩১০ পরিবারের জন্য প্রাথমিকভাবে ১০ কেজি করে চাউল সরকারি ত্রাণ তহবিল থেকে এসেছে, যা পর্যায়ক্রমে বিতরণ করা হচ্ছে। আরও ৩০০ পরিবারের নামের তালিকা চাওয়া হয়েছে এবং তালিকা প্রস্তুতের কাজ চলছে। যদি কোন হতদরিদ্র ব্যাক্তি আমার তালিকায় বাদ পড়ে, খোঁজ পেলে তা সংগ্রহ করে বিতরণ করা হবে।” সরকারি ত্রাণ বিতরণের স্বচ্ছতার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন “আমার শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকতেও আমি ত্রাণ বিতরণে কোন অনিয়ম করব না বা অনিয়ম সহ্যও করব না।”

বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ত্রাণ বিতরণ করছেন চেয়ারম্যান মিরোজ হোসেন


তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে আমি যেভাবে দ্বারে দ্বারে ভোট চেয়েছি, ঠিক সেভাবে মানুষের দ্বারে দ্বারে খাবার দিতে যাচ্ছি। আমার ইউনিয়নের একটি পরিবারও না খেয়ে থাকে, তবে সে দায় আমার। করোনা পরিস্থিতিতে দরিদ্র মানুষের জন্য আমার একার পক্ষে সব করা সম্ভব না। তিনি ইউনিয়নের ধনীব্যক্তিদের দেশের এ সংকটময় মুহূর্তে এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান যারা ইতোমধ্যে মাশুমদিয়া ইউনিয়নের দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর