Wednesday, এপ্রিল ২৪, ২০২৪
শিরোনাম
পাবনায় বিপুল পরিমাণ টাকাসহ পাউবোর দুই প্রকৌশলী আটক, পালিয়ে গেলেন ঠিকাদারসাঁথিয়ায় ডেপুটি স্পিকারের উদ্বোধনকৃত নতুন হাট ভেঙ্গে দিলেন এসিল্যান্ডসাঁথিয়ায় দোকান ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগসাঁথিয়ার কাশিনাথপুরে মাতৃগর্ভে থাকা শিশুর লিঙ্গ পরিচয় প্রকাশ করে রমরমা ব্যবসাআটঘরিয়ায় পহেলা বৈশাখ বাংলা নববর্ষ  উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমুলক আলোচনাআটঘরিয়ার লক্ষীপুরে ব্রীজ ভেঙে ফেলায় বাঁশ কাঠের সাঁকো দিয়ে ১৫ হাজার লোকের পাড়াপারআটঘরিয়ায় প্রথম বারের মতো বারি -২ মৌরি মশলা চাষ করে সফল কৃষক জহুরা বেগমআটঘরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় কুত্তা গাড়ির হেলপার নিহতপেঁয়াজের অস্বাভাবিক দাম রাতে পেঁয়াজখেত পাহাড়ায় কৃষকআটঘরিয়ায় স্বামীর উপর অভিমানে স্ত্রীর আত্মহত্যা : স্বামী আটক

পাবনা থেকে পালানো করোনা উপসর্গের রোগী হিলিতে আটক

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক : পাবনা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালিয়ে যাওয়া রোগী মোস্তাক আল মামুনকে (২৫) আটক করা হয়েছে। দিনাজপুরের হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার নিজ বাড়ি থেকে বৃহস্পতিবার (০৯ এপ্রিল) তাকে আটক করে থানা পুলিশ। তার শরীরে করোনাভাইরাস আক্রান্তের উপসর্গ নেই বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন। তবুও পরিবারের সকলকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
হাকিমপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ বলেন, ‘পাবনা থেকে পালানো রোগী সম্পর্কে তথ্য পেয়ে আমরা অনুসন্ধান শুরু করি। মোস্তাক আল মামুনের বাড়ি দিনাজপুরের হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার মাধবপাড়া গ্রামে। তার পিতার নাম আনিছুর রহমান। মামুনের বাড়ি ফেরার সংবাদ নিশ্চিত হয়ে পুলিশ টিম সেখানে উপস্থিত হয়। পরে সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।’
হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রাফিউল আলম বলেন,‘মামুনের মাঝে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের উপসর্গ দেখা যাচ্ছে না। তারপরও মামুনসহ তার বাড়ির সবাইকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়েছি ।’
উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল জ্বর, সর্দি-কাশি ও মাথা ব্যাথা নিয়ে মামুন পাবনা বেড়া উপজেলার দিঘলকান্দি গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে যান। গত সোমবার শ্বাসকষ্ট নিয়ে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে তাকে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়। কিন্তু মামুন শুরু থেকেই সেখানে থাকার ব্যাপারে আপত্তি জানিয়ে আসছিলেন। এরপর বুধবার বিকেলে সেবাকর্মীরা দেখতে পান মামুন ওয়ার্ডে নেই। রোগী পালিয়ে গেছেন তা নিশ্চিত হয়ে সন্ধ্যায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থানায় জিডি করে।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর