Tuesday, মে ২১, ২০২৪

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের উদ্দেশ্যে সাঁথিয়া থানার ওসি

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

মো. আবু আল সাইদ : বিশ্ব আজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসাবে সবচেয়ে বেশি ফেসবুকের উপর নির্ভরশীল। ইন্টারনেটের মাধ্যমে খুব সহজেই মানুষ ফেসবুকের কল্যাণে মুহূর্তের মধ্যে গোটা বিশ্বের সাথে যোগাযোগ করতে পারছে।ফেসবুকে নিজের একটি আইডি খুলে ইচ্ছেমত নিজের কিংবা অন্যের ভিডিও,অডিও, ছবিসহ যেকোন মতামত তুলে ধরতে পারছে। তাই ফেসবুক ব্যবহারে যেমন সুবিধা আছে, তেমনি অসুবিধাও আছে। এজন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের জন্য রয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি আইন আর এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন/২০১৮ সম্পর্কে সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আসাদুজ্জামানের আইনগত ব্যবস্থা ও দিকনির্দেশনামূলক পরামর্শ হুবুহু তুলে ধরা হলো :
সংগত কারণেই Facebook ব্যবহারকারীদের এটা জানা জরুরী প্রয়োজন :
আপনি কি ফেসবুক ব্যবহার করছেন? ভালো কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন/২০১৮ সম্পর্কে জানেন কি???
আপনি, আপনার ছেলে-মেয়ে বা আত্মীয়-স্বজন ঘরে বসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম Facebook ব্যবহারে জেনে বা না-জেনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গুরুতর অপরাধ বা অপরাধে সহায়তা করে চলেছেন। আপনি জানেন কি? আপনার এ ধরনের অপরাধে ০৫ বৎসর থেকে ১৪ বৎসর পর্যন্ত করাদন্ড, সঙ্গে ৫ লক্ষ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত অর্থ জরিমানার শাস্তির বিধান রয়েছে!
সম্প্রতি বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হওয়ায় দেশবাসীকে গুরুত্বপূর্ণ কাজ ব্যতীত বাড়ি থেকে বের হতে সরকারি নিষেধ রয়েছে। তাই সারাদিন ঘরে বসে থেকে আমরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে Facebook ব্যবহার করছি, কিন্তু Facebook ব্যবহার করতে গিয়ে আপনি নিম্নলিখিত কাজগুলির মাধ্যমে অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন না তো? অপরাধে জড়িয়ে পড়লে যে কোন সময় আপনার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হতে পারে এবং আপনি গ্রেফতার হয়ে জেল খাটতেও পারেন। এই ধরনের অপরাধগুলো সাধারণত হাইস্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্রছাত্রী এবং গ্রামের স্বল্পশিক্ষিত যুবকগণ নিজে বুঝে অথবা না-বুঝে করে ফেলছেন।
দেখুন তো আপনার Facebook ID ব্যবহার করার সময় এই কাজগুলো করছেন কিনা?
১. আপনার Facebook এর Friend list এ কোন অপরিচিত ব্যক্তি বা অপরিচিত ID রয়েছে কি না? যদি থাকে তো আপনি যে কোন সময় ভুল করতে পারেন এবং আটক হয়ে জেলে যেতে হতে পারে। কারণ অপরাধমূলক পোস্টে like, comment এবং Share করা যাবে না।
২. অপরিচিত Facebook ID আপনার Friend list এ থাকলে ঐ ID তে যদি কোন অপরাধমূলক তথ্য, সম্মানিত কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মানহানিকর Status, রাষ্ট্রবিরোধী ও কোন ধর্মকে কটুক্তি করে মন্তব্য, অসত্য, বানোয়াট তথ্য প্রকাশ (গুজব) ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী বক্তব্য পোস্ট করা হয়, তবে আপনি Facebook ব্যবহারকালে ঐ সকল পোস্টগুলোতে জেনে বুঝে, বা না জেনে, না-বুঝে যদি কমেন্ট করেন, লাইক দেন বা শেয়ার করেন, তবে আপনি উক্ত অপরাধে সহায়তা করেছেন মর্মে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আসামি হয়ে গ্রেফতার হবেন।
৩. অনেক সময় ঐ সকল ID সমূহ Fake ID হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে Fake ID এর ব্যবহারকারী সনাক্ত নাও হতে পারে. কিন্তু আপনি তাতে like, comment বা share করায় ঠিকই ধরা পড়বেন এবং জেলে যাবেন।
৪. আপনার অনেক বন্ধুর Facebook ID Fake হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে ঐ Fake ID সনাক্ত করতে পুলিশ প্রথমে আপনাকে Friend হওযার সুবাদে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঐ ID এর ব্যবহারকারীকে সনাক্ত করবে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আপনি বলতে পারবেন না যে আপনার ঐ বন্ধুকে আপনি চিনেন কিনা।
৫. সাঁথিয়ার গ্রামগঞ্জের অনেক অল্প শিক্ষিত ব্যক্তিগণ নিজে Facebook ID ব্যবহার করতে পারেন না, কিন্তু অন্য কোন ব্যক্তি Facebook ID তাকে খুলে দিয়েছে। সেক্ষেত্রে অপর ব্যক্তিটি ঐ ব্যক্তির Facebook ID এর পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে অপরাধমূলক তথ্য পোস্ট করে অল্প শিক্ষিত ঐ যুবককে বিপদে ফেলছেন।

আপনি কি এই ভূলগুলো করেছেন? তাহলে আপনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হবার আগেই তা সংশোধন করুন। তা না হলে অতিসম্প্রতি আপনি আসামীরুপে গ্রেফতার হতে পারেন।

উল্লেখ্য, সাঁথিয়া থানা এলাকায় কয়েকটা Fake Facebook ID ব্যবহার হচ্ছে এবং কয়েকটা Facebook ID এর ব্যবহারকারীকে সনাক্ত করার পর দেখা গেছে তারা অল্পশিক্ষিত এবং এ বিষয়ে জ্ঞান না থাকার সুযোগে পাসওয়ার্ড অন্যজন ব্যবহার করে ঐ ব্যক্তিকে ক্ষতিগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছে। তা বুঝতে পেরে এবং প্রথম পর্যায়ে ক্ষমা চাওয়ায় তাদের অভিযোগকারীগণ ক্ষমা করেছেন। কিন্তু বারবার তো আর ক্ষমা হবে না, তাই না? সম্প্রতি সময়ে সাঁথিয়াতে”জোড়গাছার সংবাদ” ও “জেলা ছাত্রলীগ পাবনা” নামে Fake ID খুলে নির্বাচিত কয়েকজন প্রতিনিধির বিরুদ্ধে নানা প্রকার অসত্য ও সম্মানহানিকর বক্তব্য পোস্ট করেছেন। এই সংক্রান্তে তদন্তকালে প্রাথমিকভাবে কয়েকজন ব্যক্তিকে সনাক্ত করা হয়েছে যারা উক্ত Fake lD গুলোতে like, comment ও share করেছেন। কয়েক দিনের মধ্যেই সাঁথিয়া থানা পুলিশ Fake ID এর ব্যবহারকারীদের তথ্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট হতে প্রাপ্ত হয়ে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের কার্যক্রম শুরু করবে। এতে অনেকেই আটক হবেন। এমতাবস্থায় যে সকল ব্যক্তি Facebook এ চোখ রাখেন তারা সতর্ক হোন এবং আপনার সন্তানসহ আত্মীয় স্বজনদেরকেও সতর্ক করুন। মনে রাখবেন, অপরাধমূলক পোস্টে কখনো like, Comment বা Share করবেন না।” আর যাদের Facebook সম্পর্কে জ্ঞান নাই তারা অন্তত এটা ব্যবহার করতে গিয়ে বিপদ টেনে আনবেন না। আশা রাখি- সকলে এই বিষয়ে মনোযোগী হবেন। অপরিচিত Friend Request এড়িয়ে চলবেন। আল্লাহ যেন এই মহাদূর্যোগ করোনা ভাইরাস থেকে আমাদেরকে রক্ষা করেন।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর