Sunday, মে ১৯, ২০২৪
শিরোনাম

উদ্বিগ্ন শিক্ষার্থীদের জন্য কাশিনাথপুরে শুরু হলো বিজ্ঞান কলেজ

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সিকদার সোবহান : এসএসসি’র ফল প্রকাশ নিয়ে নানা শঙ্কা কাটিয়ে ওঠার পর এবার কলেজে ভর্তি নিয়ে নতুন করে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা তৈরি হয়েছে সারাদেশের সদ্য এসএসসি উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ধারণা, ভালো কলেজে ভর্তি হলে ভালো করা যাবে। যা উচ্চশিক্ষার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে বা মেডিক্যাল কলেজগুলোতে ভর্তির ক্ষেত্রে সহায়ক।

কিন্তু দূর্যোগ-দূর্বিপাকে, করোনাকালের আতঙ্কের ভেতর অভিভাবকরা ঝুঁকি নিয়ে দূরে কোথাও ভর্তি করাতে ইচ্ছুক নন। আদরের সন্তানকে নিজের কাছেই আগলে রাখতে চান সবাই। আবার পাশাপাশি উন্নত শিক্ষাজীবনও প্রত্যাশা। জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার যে দুটি বছর, সেই দুটি বছর সন্তান কোথায় ভর্তি হবে? কোথায় থাকবে? কার সাথে মিশবে? কার রোষাণলে পড়বে? মুকুলেই ঝড়ে যাবে না তো সব স্বপ্ন? সন্তানকে নিয়ে হাজারো চিন্তা কাশিনাথপুরের অভিভাবকদেরও! এ দুটি বছরও যদি সন্তানকে নিজের কাছে রেখেই উন্নত প্রতিষ্ঠানে পড়ানো যেত! আজ করোনাকালে অভিভাবকদের এমনি হাজারো দুশ্চিন্তার অথৈ সাগরে ‘বাতিঘর’ হয়ে এগিয়ে এসেছে কাশিনাথপুরের সাড়া জাগানো প্রতিষ্ঠান ওয়েসিস শিক্ষা পরিবার। ওয়েসিস শিক্ষা পরিবার পরিচালিত ‘কাশিনাথপুর বিজ্ঞান কলেজ’ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার আলোক দুয়ার উন্মোচন করতে বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগে শিক্ষার্থী ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন। গত ১ জুন থেকে তারা ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু করেছেন। রাজনীতি ও ধুমপানমুক্ত, উন্নত পাঠদানের প্রতিশ্রুতি নিয়েই সময়ের প্রয়োজনে কাশিনাথপুর বিজ্ঞান কলেজের আত্মপ্রকাশ বলে জানিয়েছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রকৌশলী আনোয়ারুল আজীম খান বলেন, স্থানীয় কিছু অভিভাবকের অনুরোধে আমরা কাশিনাথপুর বিজ্ঞান কলেজ নামে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের প্রতিষ্ঠান চালু করেছি। বিষয়ভিত্তিক অনার্স-মাস্টার্সধারী দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক-শিক্ষিকা দ্বারা পরিচালিত হবে প্রতিষ্ঠানটি। আপাতত বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগে সীমিত সংখ্যক আসনে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা হচ্ছে। পরবর্তীতে বাণিজ্য বিভাগও চালু করা হবে।

কলেজে ভর্তি করতে আসা অভিভাবক সুলতান মাহমুদ বলেন, আমার মেয়ে এবার গোল্ডেন প্লাস পেয়েছে। পরিকল্পনা ছিল ঢাকায় বা রাজশাহীতে ভর্তি করানোর। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে সেই ঝুঁকি নিলাম না। কাছে রেখেই আর দুটি বছর পড়াতে চাই।

প্রভাষক রওশন আলী নামের আরেক অভিভাবক বলেন, ভালো কলেজে ভর্তির জন্য অনেকে মফস্বল থেকে রাজধানী বা বিভাগীয় শহরের কলেজগুলোতে ভর্তি হতে চায়। মেসে ভাড়া নিয়ে থাকে। এ বিষয়ে আমার মত হলো- নিজের বাড়ির পাশের কলেজে থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করা উত্তম। কারণ, এই দুই বছর খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কোন কলেজে ভর্তি হলো এটা কোনো বিষয় না। মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে। ভালো ফল করে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে হবে।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর