Sunday, মে ১৯, ২০২৪
শিরোনাম

বহিষ্কারের ভয়ে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আফজাল হোসেন

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

বেড়া প্রতিনিধি: পাবনার বেড়া উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনের পাঁচ দিন আগেই বহিষ্কারের ভয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আফজাল হোসেন সরে দাঁড়ালেন। যদিও নির্বাচন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময়সীমা আগেই শেষ হয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল হক বাবুকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়ে তিনি ক্ষমাও চেয়েছেন বেড়াবাসীসহ নিজের কর্মী-সমর্থকদের কাছে। শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) রাতে উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন তিনি। আফজাল হোসেন বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক।

পাবনা বেড়া উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী রেজাউল হক বাবুর বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ায় বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো.আফজাল হোসেনকে দল থেকে বহিষ্কারের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি বরাবর সুপারিশ করেছিলেন ।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক এ্যাড. আহাদ বাবু স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছিল।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি যা বলা হয়েছে তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বেড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদের (৭০) করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ১০ সেপ্টেম্বর মারা যান। পরে ওই উপজেলায় নির্বাচন কমিশন উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। সে অনুযায়ী আগামী ১০ ডিসেম্বর উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপনির্বাচনে রেজাউল হক বাবু আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান। কিন্তু আফজাল হোসেন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় গত ২৮ নভেম্বর তাকে দল থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করে জেলা কমিটি থেকে কেন্দ্রে চিঠি পাঠানো হয়। এ অবস্থায় পাবনা-৫ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স ও পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবিরের মধ্যস্থতায় বহিষ্কারের সিদ্ধান্তের পূর্বেই তিনি ক্ষমা চেয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।

শুক্রবার রাতে নিজের ফেসবুক ওয়ালে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়ে আফজাল হোসেন বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্য গোলাম ফারক প্রিন্স ও আহমেদ ফিরোজ কবিরসহ নেতারা আমাকে দলের প্রতি আনুগত্য ও শুদ্ধাশীল থেকে নৌকা মার্কার প্রতি সমর্থন এবং নির্বাচন করার অনুরোধসহ নির্দেশ দিয়েছেন। আমি আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আনুগত্য ও আস্থা প্রদর্শনপূর্বক তার মনোনীত প্রার্থী এবং দলীয় প্রতীকের প্রতি সম্মান দেখিয়ে বেড়া উপজেলা উপনির্বাচন থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নৌকা মার্কায় ভোট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এ ব্যাপারে এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স বলেন, হাইকমান্ড বিদ্রোহী প্রার্থীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে। কাজেই দলীয় সিদ্ধান্ত অগ্রাহ্য করার সুযোগ নাই। বরং দলীয় সিদ্ধান্ত মানলে ভবিষ্যতের জন্য শুভ কিছু বয়ে আনতে পারে।

শেয়ার করতে এখানে চাপ দিন

সর্বশেষ খবর